আপনারা কি W.B.C.S. অফিসার হওয়ার স্বপ্ন দেখেন ?

তাহলে প্রথমেই বলে রাখি " ন হি সুপ্তস্য সিংহস্য প্রৱিশন্তি মুখে মৃগাঃ", অর্থাৎ সিংহ বনের রাজা হলেও তাকেও খাদ্যের জন্যে পরিশ্রম করতে হয়। সিংহ ঘুমিয়ে থাকলে তার খিদের জ্বালা কোনো ভাবেই কেউ মেটাবে না।

আর আপনিও যদি W.B.C.S. অফিসার হওয়ার স্বপ্নটুকু দেখতে থাকলে, কিন্তু কোনো পরিশ্রম করলেন না তাহলে আপনার স্বপ্ন স্বপ্নই থেকেই যাবে। কারণ খুব পরিষ্কার , যে ঘুমিয়ে থাকে তার স্বপ্নও ঘুমিয়ে থাকে। মোদ্দা কথা হলো, পরিশ্রম এবং অধ্যবসায় দরকার। কিন্তু এই তাগিদ আসবে আসবে কি করে?

প্রথমত, আপনার যদি প্রয়োজনীয়তা থাকে। তবে হ্যাঁ, আমার একটা যে কোনো চাকরি দরকার!! এবং সে জন্যে একই সাথে SSC School, NET/SET ও College Service, SSC Centarl, Bank, Rail, LIC, Corporation এবং সঙ্গে W.B.C.S.(Exe) Etc. সহ PSC এর অন্যান্য পরীক্ষাগুলো এক সাথে নিয়ে বসে গেলেন। যে কোনো একটা পেলেই হলো! সে Group D হোক বা CGL বা College Service বা W.B.C.S. নিয়ে তালগোল পাকাতে থাকলেন এবং দিনের শেষে দেখলেন একটাও হচ্ছে না। এর ফলে হতাশায় ভুগতে শুরু করলেন। এই হতাশার কারণ আপনি নিজেই। কারণ এক সাথে এতগুলো পরীক্ষার Syllabus শেষ করার প্রতিভা বা ক্ষমতা কোনোটাই আপনার নেই । কিন্তু শুধু  'যেকোনো একটা' এই শব্দদ্বয় আপনাকে লক্ষ্যভ্রষ্ট করে তুলেছে। সুতরাং একটি নির্দিষ্ট দিক ঠিক করুন। ধৈয্য দরুন পরিশ্রম আসবেই। WBPSC এর পরীক্ষাগুলোর ধরণ একই রকম । চাইলে WBCS সহ WBPSC অন্য পরীক্ষা গুলো নিয়ে খাটতে পারেন।


দ্বিতীয়ত, প্রয়োজনীয়তা হয়তো আপনার পরিবারের আর্থিক সমস্যা বা অনেকের নিজের জীবনের একান্ত নিজস্ব দরকার এবং অবশ্যই আপনার বেকার থেকে সাকার হওয়ার তাগিদ থেকেই আসে। সুতরাং এই বিষয়গুলো নিয়ে দায়িত্বজ্ঞান আপনার থাকলে অবশ্যই আপনি প্রয়োজনীয়তা অনুভব করবেন এবং আপনার পরিশ্রমকে সর্বোচ্চ পর্যায়ে নিয়ে যাবে। কিন্তু মনে রাখবেন পরিশ্রম বিষয়টা খুব আপেক্ষিক। কেউ দিনে 4 ঘন্টা পড়েই বলে অনেক পরিশ্রম করেছে, আবার কেউ 14 ঘন্টা পড়েও বলে আর একটু পড়লে হতো। আপনার যতটা পরিশ্রম হলে সাফল্য আসবে ততটাই করুন। দরকার হলে ভুলে যান আপনার স্বাদ আল্লাদ, ঘুরতে যাওয়া, পিকনিক; বারণ করছি না, তবে একটু কম প্রেম করুন অর্থাৎ সময় কমান, পড়ায় সময় দিন আর, যদি বেশি ঘ্যান ঘ্যান করে তবে বুঝবেন সে দায়িত্বজ্ঞানহীন, পারলে তাকেই বাদদিন ( আবার বলে রাখি , প্রেম অবশ্যই করুন তার সাথে যে আপনাকে আলোকিত করবে)।

তৃতীয়ত, আকাঙ্খা । এটা খুব দরকারি। এটা ছাড়া আপনি বেশিদূর যেতে পারবেন না। WBCS রাজ্যের সবচেয়ে বড় চাকরি। এই ক্ষেত্রে দেখবেন, যারা কোননা কোনো চাকরি করে তাদের অনেকে অফিসের কাজ করে এবং কিছু ক্ষেত্রে অনেকে সংসার সামলেও সাফল্য পায়। সুতরাং যারা কাজে  যুক্ত নয়, পুরোপুরি ছাত্র তারা অনেক সময় পাবে। শুধু সময়ের সুষ্ঠ এবং কার্যকরী ব্যাবহার দরকার।
তাহলেই আসবে সাফল্য।

এবার আসি, অন্য আর একটা দিকে। শুধু পরিশ্রম দিয়েই কি সাফল্য আসা সম্ভব। একদম না। দরকার সুষ্ঠ পরিকল্পনা। যদি নিজের সম্যক ভাবনা এবং পরিকল্পনা থাকে তো ঠিক আছে। অন্যথায় সঠিক Guidance নিন। কারণ মনে রাখবেন অভিজ্ঞতার মূল্য অমূল্য।

এবং আরো দুটো বিষয় আপনার জন্যে খুব দরকার।

প্রথমটা হলো, কিছু বিষয় আছে যে গুলো আপনার নিজেকে রপ্ত করতে খুব সমস্যা হতে পারে। এর মধ্যে অর্থনীতি, সংবিধান, ইংলিশ ( প্রিলিমস এবং মেইন্স উভয় ক্ষেত্রে), অঙ্ক, GI, ভূগোল এবং বিজ্ঞানের কিছু অংশ। সেক্ষত্রে আপনাকে অবশ্যই একজন বা দুজন অভিজ্ঞ Guide এর সাহায্য নেওয়া উচিত।


দ্বিতীয়টি হলো, কার্যকরী নোট। এই মুহূর্তে PSC যে প্রশ্ন দিচ্ছে তাতে বুঝতে হবে কোন জাতীয় প্রশ্ন হতে পারে। সে জন্যে পর্যাপ্ত প্রস্তুতি দরকার। বস্তাপচা বাজারি নোটের দিন শেষ। এই লেভেল এর নোট বানানোর জন্য প্রচুর পরিশ্রম দরকার। যেটা বস্তাপচা নোট দ্বারা সম্ভব নয়। আপনার নিজেরাও বানাতে পারেন। তবে অভিজ্ঞতা একটা অন্তরায়। তবে হ্যা, কিছু কিছু বিষয়ের ( সব বিষয়ের না) ভালো বই আছে, সে গুলো খুব কার্যকরী কিন্তু সমস্যা একটাই খুব মোটা এবং কিছু ক্ষেত্রে একাধিক বই দরকার। হয়তো সব পড়ে ওঠা সম্ভব নয়, কোনটা বাদ দিয়ে পড়তে হবে সেটাই আগে জানা দরকার। আর তাছাড়া এই বইগুলো পরীক্ষার আগে আপনি রিভিশন করতেও পারবেন না। সেই জন্যেই দরকার ভালো এবং সমৃদ্ধ  নোট। পরীক্ষার আগে এতে সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো রিভিশন করা। এটাই সাফল্যের আসল চাবিকাঠি।
ভালো লাগলে Whatsapp এ শেয়ার করুন